হিন্দু শব্দের অর্থ ও তাৎপর্য কি?

হিন্দু শব্দের অর্থ ও তাৎপর্য কি ?

“ হিন্দু ‘ শব্দটি সিন্ধু শব্দের বিকৃত উচ্চারণে সৃষ্ট । অনেক সময় স ’ ধ্বনির উচ্চারণ ‘ হ ‘ হয় । যেমন , অসমিয়া – অহমিয়া , শালা – হালা , তেমনি সিন্ধু , হিন্দু , ইন্দু । সিন্ধুনদের অববাহিকায় বসবাসকারী জনগােষ্ঠীকে বিদেশীরা বলত “ হিন্দু ‘ । তাই হিন্দু শব্দটি স্থানজ্ঞাপক এবং সেখানকার । জনগােষ্ঠী ও তাদের সংস্কৃতি নির্দেশকও । । | সনাতন ধর্মের কোন ধর্মগ্রন্থে হিন্দু শব্দটি নেই । হিন্দুদের আচরিত । ধর্ম – ই হলাে হিন্দুধর্ম । প্রকৃতপক্ষে , হিন্দু ধর্মমতের নাম সনাতন ধর্ম , বৈদিক । | ধর্ম বা ভাগবত ধর্ম । বেদ অনসত ধর্মে যারা বিশ্বাসী তাদেরকে হিন্দু বলা হয় । এ ধর্মের প্রকাশ । ঘটেছিল সিন্ধু নদের তীরবর্তী অঞ্চলে । সে সময় ফারসী ভাষার প্রচলন বেশি । ছিল বলে ফারসীতে ‘ স ‘ কে ‘ হ ‘ উচ্চারণ করতো । তাই সিন্ধু শব্দ হিন্দু শব্দে রূপান্তরিত হয়েছিল । সে অঞ্চলে যারা বেদ অনুসৃত ধর্মে বিশ্বাসী ছিল অগ্নি । উপাসক পার্শীগণ তাদেরকে হিন্দু বলতাে । অনেকে হিন্দু শব্দের ব্যুৎপত্তিগত অর্থ চিন্তা করতে গিয়ে হিনস্ – এর অর্থ করেছেন হিংসা । অর্থাৎ হিন্দু শব্দের অর্থ করেছেন যারা হিংসা করেন না । প্রকৃত পক্ষে ‘ হিন্দু ‘ শব্দটি আমাদের সনাতন ধর্মশাস্ত্রে নেই ।

Leave a Reply